Upwork এ প্রোফাইল কমপ্লিট করার পদ্ধতি

Shortlink:

Upwork এ প্রোফাইল ১০০% কমপ্লিট করার জন্য নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন। মনে রাখবেন, প্রোফাইল ১০০% পর্যন্ত কমপ্লিট না হলে কোনো বায়ার ই আপনার কভার লেটার পড়বে না। ফলে জব পাওয়াটাও অসম্ভব হয়ে যাবে। তাই upwork এ প্রোফাইল কমপ্লিট করার কোনো বিকল্প নেই।

প্রথমেই দেখে নিন একজন প্রফেশনাল ফ্রীলান্সার এর upwork প্রোফাইল-

প্রোফাইল পিকচার:

প্রোফাইল পিকচার upwork এ জব পাওয়ার ক্ষেত্রে অনেক গুরুত্বপূর্ণ

ভুমিকা পালন করে। তাই আপনার প্রোফাইল পিকচার নির্বাচন করার ক্ষেত্রে সতর্ক থাকুন।

 

সঠিক পদ্ধতি

সঠিক পদ্ধতি

ভুল ছবি

ভুল ছবি

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

টাইটেল:

টাইটেল এ আপনার নাম ও তার নিচে আপনার পদবি টি উল্লেখ করুন। যদি আপনি ওয়েব ডেভেলপার হয়ে থাকেন
তবে তা উল্লেখ করুন। আবার যদি একের অধিক পদবি দিতে চান, তাও দিতে পারবেন। যেমন: Data entry operator and web developer.

ওভারভিউ:

ওভারভিউ এ একটু নজর দিন। কারণ এটা বায়ার কে বলে দেয় যে আপনি কি জানেন এবং কি যোগ্যতা রাখেন।
তাই ওভারভিউ পূরণ করার সময় কিছু বিষিয় মাথায় রাখা উচিত। তা হলো –
*ওভারভিউ অবশ্যই ৩-৫ লাইন এর মধ্যে হওয়া ভালো। যদি এর চেয়ে বড় করে লিখার প্রয়োজন হয় তবে পেরা করে লিখা উচিত।

*ওভারভিউ এ আপনি কি জানেন এবং আপনার কি অভিজ্ঞতা আছে তার আলোকপাত করুন।

*ওভারভিউ এ বানান ভুল করা থেকে বিরত থাকুন।

*বেশি বড় করে ওভারভিউ লিখবেন না। কারণ বায়ার এর কাছে লম্বা ওভারভিউ পড়ার সময় থাকে না।

*ওভারভিউ এমন হওয়া উচিত যেন প্রথম ২-৩ লাইনেই বায়ার আপনার সম্পর্কে ধারণা পেয়ে যায়।
*স্কিল ও অভিজ্ঞতা পয়েন্ট আকারে লিখা যেতে পারে , এতে তা সহজেই বায়ার এর নজরে পরবে।

*ওভারভিউ পূরণের ক্ষেত্রে কোন অভিজ্ঞ ফ্রীলেনসার এর ওভারভিউ দেখে নেওয়া টা একটা ভালো কাজ।

পোর্টফোলিও:

তৃতীয়ত পোর্টফোলিও আপলোড করার সময় আপনার সবচেয়ে সেরা কাজটিই নির্বাচন করুন।
পোর্টফোলিও পিডিএফ ফরমেটে দেওয়া ভালো, আর সেই ফাইলেই আপনার কাজটির বর্ণনা সহ একটি ডাউনলোডেবল লিংক দিয়ে দিন। ওয়েব ডিসাইনিং টেম্পলেট জাতীয় কোন পোর্টফোলিও দিতে চাইলে তা আপনার ব্লগ এর মাধ্যমে দিন যাতে বায়ার আপনার ব্লগ ভিসিট করে এবং সেখান থেকেই আপনার যোগ্যতা সম্পর্কে যথেষ্ট ধারণা লাভ করতে পারে।

Upwork টেস্ট:

টেস্ট দিয়ে প্রোফাইল কমপ্লিট করা যায় এবং বায়ার এ থেকে বিশাস করতে বাধ্য হয় যে আপনি কি কি কাজ করতে

পারবেন।তবে Upwork এর Rediness Test বলে একটি টেস্ট আছে যা বাধতামূলক ভাবেই সকল ফ্রীলেনসার  কেই দিতে হয় এবং পাশ করতে হয়।এই টেস্ট এর বিষয় বস্তু হলো upwork এর নীতিমালা এবং এর ব্যবহার  সম্পর্কিত জ্ঞান।তাছাড়াও অন্যান্য বিষয় এর উপর পরীক্ষা দিয়ে কাজ পাওয়ার সম্ভাবনা আরো বাড়ানো যায়।

যেমন: html test, MS Excel test, MS Word test ইত্যাদি।

 

স্কিল্স:

আপনার কি কি কাজ করার দক্ষতা আছে তা এখানে উল্লেখ করতে হবে। যেমন: php তে দক্ষতা থাকলে সেখানে php নির্বাচন করুন। মিথ্যা কোনো কিছু দেওয়ার চাইতে না দেওয়াই ভালো।
কারণ কাজটা কিন্ত আপনাকেই সম্পন্ন করতে হবে তাই ভুল বা বানোয়াট কিছু দিলে কোনো লাভ হবে না।

 

গ্লোবাল সার্টিফিকেশন:

কোন নামকরা প্রতিষ্ঠান থেকে কোর্স শেষ করে যদি সার্টিফিকেট পেয়ে থাকেন তবে তা আপলোড করুন। অবশ্যই প্রতিষ্ঠানটির সার্টিফিকেট এর বিশ্বে সার্বজনীন অনুমোদন থাকতে হবে।

সতর্কতা:

কিছু সতর্কতা মেনে চললে আপনার ফ্রীলান্সিং ক্যারিয়ার অনেক ঝামেলামুক্ত হবে। অনুগ্রহ করে এগুলো মেনে চলার চেষ্টা করবেন।

*যে সকল বায়ার এর পেমেন্ট মেথড not verified সে সকল বায়ার এর কাজে আবেদন না করাই ভালো।

*ফিক্সড রেট এ কাজ না করাই উত্তম।

*অবশ্যই শিডিউল মেনে চলুন, এমনকি জব গুলোতে আবেদন করার ক্ষেত্রেও।
*এমন জব এ আবেদন করুন যেটি আপনি করতে পারবেন।
*কোন জব পেলে তাতে আপনার সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করুন। মনে রাখবেন, বায়ার এর একটি নেগেটিভে রিভিউ আপনার ফ্রীলান্সিং প্রোফাইল এ একটি কলঙ্কের দাগ হয়ে রয়ে যাবে। যা আপনার পরবর্তী কাজ পাওয়ার ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে পারে।

*পুরোপুরি প্রস্তুত হয়েই ফ্রীলান্সিং করুন, নয়তো আপনার ফ্রিলান্সিং কেরিয়ার শুরু করার আগেই শেষ হয়ে যাওয়ার
সম্ভাবনা থাকে।

 

নিচের ভিডিওটি দেখতে পারেন, আপওয়ার্ক অফিসিয়্যালী টপরেটেট ফ্রিল্যান্সারদের নিয়ে একটি অনলাইন মিটআপ করে ছিলো, তার ভিডিও

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Subscribe For Latest Updates

Signup for our newsletter and get notified when we publish new articles for free!